সিলেটে শিল্পকলা কর্মকর্তার ভূমিকায় নাট্যকর্মীদের ক্ষোভ

সিলেটে শিল্পকলা কর্মকর্তার ভূমিকায় নাট্যকর্মীদের ক্ষোভ

ব্রেকিংস ডেস্ক:

করোনা পরবর্তী সময়ে শিল্পকলাগুলোর হল ভাড়া মওকুফ করতে দেশব্যাপী সংস্কৃতিকর্মীদের দাবির সময় সিলেট জেলা শিল্পকলা একাডেমির কালচারাল কর্মকর্তার ভূমিকা নিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন নাট্যকর্মীরা।

সোমবার (২০ সেপ্টেম্বর) সন্ধ্যায় সিলেটের কবি নজরুল অডিটোরিয়াম মঞ্চে সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেটের ৩৭ তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে লিটল থিয়েটারের ‘ভাইবে রাধারমণ’ নাটকের মঞ্চায়ন শেষে এমন ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়।

এসময় লিটল থিয়েটারের আহ্বায়ক ও সম্মিলিত নাট্য পরিষদের সাবেক সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কায়ুম মুকুল বলেন, ‘বর্তমান সময়ে যখন সারা দেশের সংস্কৃতিকর্মীরা করোনাকালীন বিবেচনায় শিল্পকলাগুলোর হল ভাড়া মওকুফ করার দাবি তুলছেন তখন আমাদের সিলেট জেলা শিল্পকলা থেকে হল ভাড়া যাতে মওকুফ করা না হয় সে মর্মে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক বরাবর লিখিত পাঠানো হয়েছে, যা নিন্দনীয়। তাই এ মঞ্চে দাঁড়িয়ে তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’

এসময় আব্দুল কাইয়ুম মুকুলের এ প্রতিবাদের সাথে সংহতি জানান মঞ্চে উপস্থিত সম্মিলিত নাট্য পরিষদের নেতৃবৃন্দ।

এ ব্যাপারে সিলেট জেলা কালচারাল কর্মকর্তা অশিত বরণ দাসের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘এখানকার কালচারাল কর্মকর্তা হিসেবে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে আমার অফিসের পরিস্থিতি জানানো আমার দায়িত্ব। তাই চিঠিতে আমার সীমাবদ্ধতা জানিয়েছি।’

হল ভাড়া মওকুফ করতে বারণ করেননি জানিয়ে তিনি বলেন, ‘আমি তাদের অবগত করেছি যে, শিল্পকলায় হল ভাড়া বাবদ যে টাকা পাওয়া যায় তার থেকে বেশি বিদ্যুৎ বিল আসে। সুতরাং সামগ্রিক বিষয় ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছি। তা না হলে দেখা গেলো, পরে বিদ্যুৎ বিল বকেয়া থাকায় শিল্পকলার হল বন্ধ হয়ে গেলো। সে ক্ষেত্রে সমস্যা। তাই অবস্থা বিবেচনায় ব্যবস্থা নিতেই আমি লিখিত পাঠিয়েছি। কোনভাবেই আমি হল ভাড়া মওকুফ না করতে বলিনি।’

প্রসঙ্গত, সম্প্রতি ঢাকায় শিল্পকলা একাডেমিতে হল ভাড়া মওকুফ করে দিতে আন্দোলন করেন সংস্কতিকর্মীরা। এসময় শিল্পকলা একাডেমির মহাপরিচালক তাৎক্ষণিক সিদ্ধান্ত নিয়ে হল ভাড়া মওকুফ করে দুটি সংগঠনকে নাটক করার সুযোগ করে দেন। এরপরই সারা দেশের সংস্কৃতিকর্মীরা শিল্পকলাগুলোতে হল ভাড়া মওকুফ করে করোনা পরবর্তীতে নাট্য সংগঠনগুলোকে মঞ্চে ফিরতে সহযোগিতা করার দাবি তুলেন।