জগন্নাথপুরের পাইলগাঁও জমিদারবাড়ি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরে সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত

জগন্নাথপুরের পাইলগাঁও জমিদারবাড়ি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরে সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত

জগন্নাথপুর অফিস : সুনামগঞ্জের জগন্নাথপুর উপজেলার ৯ নম্বর পাইলগাঁও ইউনিয়নের পাইলগাঁও গ্রামে অবস্থিত পাইলগাঁও জমিদার বাড়িটি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মাধ্যমে সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। সাংস্কৃতিক বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব নাজমা বেগম স্বাক্ষরিত পত্রে গত ২১ জানুয়ারি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের মহাপরিচালককে এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্তের গেজেটের কপি মন্ত্রণালয়ের প্রেরণ করতে বলা হয়েছে।

জানা গেছে, জগন্নাথপুর উপজেলার পাইলগাঁও ইউনিয়নের পাইলগাঁও গ্রামে এ অঞ্চলের ইতিহাস-ঐতিহ্যের নির্দেশন পুরাতন জমিদার বাড়িটি প্রায় সাড়ে ৫ একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত। এককালের নয়নাভিরাম সৌন্দর্যমন্ডিত বাড়িটি এ অঞ্চলের ইতিহাস-ঐতিহ্যের প্রতীক।

এই জমিদার পরিবারের শেষ জমিদার ব্রজেন্দ্র নারায়ণ চৌধুরী ছিলেন প্রখ্যাত শিক্ষাবিদ ও রাজনীতিবিদ। তিনি ছিলেন সিলেট বিভাগের কংগ্রেস সভাপতি এবং আসাম আইন পরিষদের সদস্য। তিনি পাইলগাঁও বিএন উচ্চবিদ্যালয়, সিলেটের রসময় উচ্চবিদ্যালয় ও সিলেট মহিলা কলেজ প্রতিষ্ঠা করেন।

গতবছর তার প্রতিষ্ঠিত বিএন উচ্চবিদ্যালয়ের শতবর্ষ উদযাপন অনুষ্ঠানে জমিদার বাড়িটি সংরক্ষণের দাবি জানানো হয়। ওইবছরের ১২ ফেব্রুয়ারি প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরের একটি দল সরেজমিনে বাড়ি পরিদর্শন করে বাড়িটি পুরাকীর্তি হিসেবে প্রত্নতত্ত্ব অধিদপ্তরে সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত নেয়।

জগন্নাথপুর উপজেলার নির্বাহী কর্মকর্তা মেহেদী হাসান এ খবর নিশ্চিত করে বলেন, পাইলগাঁও জমিদার বাড়ি সংরক্ষণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বিথী/১৯